সোমবার, ১৭ই জুন ২০২৪, ৩রা আষাঢ় ১৪৩১


‘আমার মা-বাপ যা পারেনি তা সাংবাদিকরা করেছে’


প্রকাশিত:
২০ মে ২০২৩ ১৭:০১

আপডেট:
১৭ জুন ২০২৪ ০৭:৪৬

ছবি সংগৃহিত

‘আমার মা-বাপ (বাবা), আত্মীয়-স্বজনরা যা করতে পারেনি, তা সাংবাদিকরা করেছে। আমি খুবই খুশি। আমার বিপদে এতোগুলো সাংবাদিক পাশে দাঁড়িয়েছে। আমি কোনোদিন এতো দূরে আসতে পারতাম না, আমার চিকিৎসা ও মেশিন (অক্সিজেন কনসেনট্রেটর) কিনতে পারতাম না। আমাদের শেষ আশ্রয় সাংবাদিকরা। আল্লাহ আপনাদের (সাংবাদিক) ভালো করুক।’

শনিবার (২০ মে) সকালে এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন অক্সিজেনের পাইপ নাকে নিয়ে রিকশা চালানো মাইনুরজ্জামান সেন্টু। তিনি বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ১৪নং ওয়ার্ডের ১২নং বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মাইনুরজ্জামান সেন্টু বলেন, ‘আমি আগের থেকে অনেক ভালো আছি। আল্লাহর রহমতে আমার ভালো চিকিৎসা দিচ্ছেন ডাক্তারা। ডাক্তারা আমার আরও চারটি পরীক্ষা দিয়েছে। সেগুলোর রিপোর্ট দুই-তিনদের মধ্যে পেয়ে যাব। এরপরে রিপোর্টগুলো ডাক্তারা দেখাবে। তেমন হলে মঙ্গল বা বুধবার ছুটি পেতে পারি।’

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৮ মে) দুপুরে রাজশাহী জেলা প্রশাসক (ডিসি) শামীম আহমেদ রামেক হাসপাতালে গিয়ে সেন্টুর সঙ্গে কথা বলে তার চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। এ সময় তিনি সেন্টুর যাবতীয় চিকিৎসার ভার নেন। একই সঙ্গে তার কর্মসংস্থানের ব্যবস্থার আশ্বাস দেন। এছাড়া শ্রম ও কর্মসংস্থাপন প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান সেন্টুর তাৎক্ষণিক চিকিৎসা সহায়তার ঘোষণা দেন। এমপিপুত্র ও সমাজসেবক ফারাজ করিম চৌধুরী তাকে অর্থিকভাবে সহায়তা করেন মেশিন (অক্সিজেন কনসেনট্রেটর) কেনার জন্য। এছাড়া না প্রকাশ না করে অনেকে সহায়তা করেছে।

হাসপাতালের ১৪নং ওয়ার্ডে চিকিৎসক ডা. নিশাদ জামি বলেন, সেন্টুকে প্রায় সব চিকিৎসকই চেনেন। কারণ তিনি এর আগেও মেডিসিন ওয়ার্ডগুলোতে চিকিৎসা নিয়েছেন। আমরা তার চিকিৎসা দিচ্ছি। এখন তিনি আগের চেয়ে ভালো আছেন।

এর আগে গত ১৫ মে জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল মাইনুরজ্জামান সেন্টুকে নিয়ে ‘অক্সিজেনের পাইপ নাকে নিয়ে রিকশা চালান তিনি’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর ঘটনাটি সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে। প্রতিবেদন দেখে অনেকেই তার দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
ইমেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক: মো. জেহাদ হোসেন চৌধুরী

রংধনু মিডিয়া লিমিটেড এর একটি প্রতিষ্ঠান।

Developed with by
Top