রবিবার, ২রা অক্টোবর ২০২২, ১৬ই আশ্বিন ১৪২৯


সাংবাদিক শাকিলকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার রায় পেছালো


প্রকাশিত:
২০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:৩৪

আপডেট:
২ অক্টোবর ২০২২ ০২:০২

 ছবি : সংগৃহীত

যমুনা টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার শাকিল হাসান ও ক্যামেরা পারসন শাহীন আলমকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা মামলায় রায় প্রস্তুত না হওয়ায় পিছিয়ে গেল। পরবর্তী রায় ঘোষণার জন্য আগামী ১৮ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টম্বর) ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) রেজাউল করিম চৌধুরীর আদালত এ আদেশ দেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, গত ৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) রেজাউল করিম চৌধুরীর আদালত উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য আজ মঙ্গলবার দিন ধার্য করেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী এখলাছ উদ্দিন ভুঁইয়া যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানি করেন। শুনানিতে তিনি বলেন, দুই সাংবাদিকের ওপর হামলার সময় ক্যামেরায় ধারণ করা ৪ মিনিটের ফুটেজ আদালতে দেওয়া হয়েছে।
সেখানে দেখা গেছে, আসামি রহিম, জব্বার, জাকিরের নেতৃত্বে অন্যান্যরা হামলা করছে। এই আসামিদের শনাক্ত করে ছবিও আদালতে দাখিল করা হয়েছে। যাতে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ হয় রহিম, জব্বার, জাকিরের নেতৃত্বে শাকিল ও শাহিনকে মারধর করে ও পরে শাকিলকে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টা করে।

অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী কাজী নজিবুল্লাহ হিরু যুক্তিতর্ক শুনানিতে বলেন, দুই সাংবাদিক চাঁদা চাইতে গেলে ব্যবসায়ী নেতারা তাদের মারধর করে। কিন্তু কোনও ব্যবসায়ী নেতাকে আসামিপক্ষ সাফাই সাক্ষী হিসেবে আদালতে উপস্থাপন করেনি।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক শাকিল হাসান জানান, দায়িত্বরত সাংবাদিকের ওপর হামলার অর্থ শুধু ব্যক্তিগতভাবে কাউকে আক্রান্ত করা নয়, বরং গণমাধ্যমের স্বাধীনতার ওপর হামলা। এ হামলার মাধ্যমে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা এবং নিরাপত্তা আক্রান্ত হয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে মামলাটি চালাচ্ছেন, কারণ তিনি প্রমাণ করতে চান সাংবাদিকের ওপর হামলা হলে বিচার হয়। এর আগে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডসহ অসংখ্য সাংবাদিক নিপীড়নের ঘটনায় তারা কোনও বিচার হতে দেখেননি।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর রাজধানীর চকবাজারে দেবীদাস লেনে অবৈধ পলিথিন ব্যাগ তৈরির অবৈধ কারখানা নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করতে গিয়ে হামলার শিকার হন যমুনার সিনিয়র রিপোর্টার শাকিল হাসান ও ক্যামেরা পারসন শাহীন আলম। রহিম, জব্বার, জাকিরের নেতৃত্বে হামলাকারীরা তাদের ওপর চড়াও হয় এবং ক্যামেরা ভাঙচুর করে। হামলা থেকে বাঁচতে তারা নিকটস্থ একটি মুদি দোকানে আশ্রয় নিলে হামলাকারীরা শাকিল হাসানের গায়ে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে স্থানীয় লোকজন বাধা দেওয়ায় প্রাণে বেঁচে যান শাকিল।

এ ঘটনায় শাকিল হাসান বাদী হয়ে চকবাজার থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন। দুই আসামি গ্রেফতার হলেও পরে জামিনে বেরিয়ে যান তারা।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
ইমেইল : editordailymail@gmail.com, newsroom.dailymail@gmail.com
সম্পাদক: মো. জেহাদ হোসেন চৌধুরী

রংধনু মিডিয়া লিমিটেড এর একটি প্রতিষ্ঠান।

Developed with by
Top